“পাঁচটা গুনলাম না? হাঁ তাইতো, পাঁচটাই তো গুনলাম, কিন্তু এখন দেকছি তিনটে পটল! আর দুটো কি ভুতে খেয়ে ফেলল? ব্যাটাছেলে চালাকি করার জায়গা পায়না! কালই হারামজাদা টাকে উত্তম মদ্ধম দিতে হবে – আমাকে ঠকানো? আরে যখন জোয়ান ছিলাম তখন আমার চোখের দিকে তাকাতে রিতিমত লোকে ভয়ে পেত!” – বাষট্টি বছর অতিক্রম করলেও তার মীলীটীড়ী মেজাজে এখনও ভাটা পড়েনি বোঝাই গেল। রামকিঙ্কর বাবু রাগের চোটে বাজারের ব্যাগটা ছুড়ে কোথাও একটা ফেলে দিলেন।

পরের দিন একটু বেলা কোরেই, যাতে ভিড়টা আরেটু বাড়ে, রামকিঙ্কর বাবু বাঁজারে গিয়ে উপস্তিত হলেন। রামকিঙ্কর বাবুকে পাড়ার ক্লাবের সাম্পাদক হওয়ার সুবাদে মটামটি সবাই চেনে, তাই বাজারে যেতে না যেতেই চায়ের দকানের হারু হাঁক পারলো “পেন্নাম রাম দা, আপনার চা রেডি!” কিন্তু কোথায়ে আর চা সেদিন! রামকিঙ্কর তার রক্ত চক্ষু নিয়ে গডগড করে এগিয়ে গেলেন লালুর ছোট্ট দকানের দিকে। রামকিঙ্কর বাবুকে দেখে যেইনা লালু একগাল হাসতে যাবে অমনি সপাটে কশিয়ে একটা চর বসালেন তার গালে। লালু কিছু বুঝে ওঠার আগেই সামনে রাখা এক ঝুড়ি পটল ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দিলেন আর সেগুলোকে পা দিয়ে পিষটাতে লাগলেন আর লালু হতবাকের মতন শুধু থেঁৎলে যাওয়া পটলগুলির দিকে ফ্যালফ্যাল করে চেয়ে থাকল আর তার দু নয়ন গড়িয়ে ঝড়তে লাগল স্ফটিকবিন্দুর মতন স্বচ্ছ অশ্রুধারা। লালু বাচ্চা ছেলে, বয়েস বড়জোর সাত কি আট; আগের বছর ডেঙ্গুতে তার বাবা না মারা গেলে লালু এই সামায় ক্লাসএই থাকতো। কীইবা আর করবে লালু? বাড়িতে অসুস্থ মা; লালু হাল না ধরলে কেইবা ওদের দ্যয়া করে দুটো পয়েশা দিয়ে সাহাজ্জ করত? ধ্বংসলিলার অবসান ঘটিয়ে রামকিঙ্কর বাবু আরেকটা নিরমম চর কসিয়ে একটা বজ্র হুঙ্কার ছাড়লেন “বয়েস্ক মানুষ বলে ভাবিস না যে আমাকে ঠকিয়ে তুই পার পায়ে জাবি!”

বাড়ি ফিরে আরেক বিপত্তি – বাজারএর ব্যাগটা পাওয়া যাচ্ছেনা। গতকাল রাগের মাথায়ে কোথায়ে ছুড়ে ফেলেছিলেন কিছুতেই মনে পরলনা রামকিঙ্কর বাবুর। তাঁর স্ত্রি শিবানিদেবি তো রেগেই আগুন। হাজার খোজের পর ব্যাগটা বেড়িয়ে এলো শোফার পিছনদিক থেকে। পেলেন তাঁর স্ত্রিই। কিন্তু রামকিঙ্কর বাবুকে অবাক করেদিয়ে তাঁর স্ত্রি সুই সুত নিয়ে বসলেন। রামকিঙ্কর বাবু কিছু বুজতে না পারে একটু এগিয়ে গিয়ে দেখলেন ব্যাগটার গায়ে পেল্লাই একটা ফুটো।

রামকিঙ্কর বাবু কিছু একটা ভাবতে ভাবতে তাদের অনেক পুরনো কারুকাজ করা সেগুন কাঠের বিছানাটার দক্ষিন কনে অনেক দিনের বন্ধ জানালাটা খোলার চেষ্টায়ে বেস্ত হলেন।
Rawtone

Photo By:
Submitted by: Rawtone
Submitted on: Sun Jan 18 2015 12:58:29 GMT+0530 (IST)
Category: Original
Language: Bengali

– Read submissions at https://abillionstories.wordpress.com
– Submit a poem, quote, proverb, story, mantra, folklore, article, painting, cartoon or drawing at http://www.abillionstories.com/submit

Advertisements